Status

বিচ্ছেদ জ্বালা

বিচ্ছেদ জ্বালা

মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম
অন্তরে আগুন জ্বালাইয়া তুমি গেলা কই?
গাছেতে উঠাইয়া দিয়া টাইনা নিলা মই।
তোমার বিচ্ছেদ জ্বালা কেমনে আমি সই?
তুমি বীনে একলা বল কেমনে আমি রই?

রঙ বেরঙের স্বপ্ন দিয়ে তুমি গেলা চলে,
বল তুমি, কেমন করে অন্যের সাথী হলে?
আমারে কান্দাইয়া বল কি সুখ তুমি পেলে?
বিবা-নিশি আমি এখন ভাসি চোখের জলে।

মনের শান্তি চোখের ঘুম সব নিয়েছ কেড়ে,
জীবন বৃক্ষ ছাই হল মোর প্রেমানলে পুড়ে।
মিষ্টি মধুর কথায় মনটা নিয়েছিলে কেড়ে,
বল তুমি কেমন করে থাকছ আমায় ছেড়ে।

আপন কেহ নাইরে, সবাই কলঙ্কিনী বলে,
এখন শুধু বালিশ ভিজাই আমি আঁখি জলে।
বিরহিণীর নাইরে কেহ এইনা ধরা তলে,
তোমার বিচ্ছেদ জ্বালায় অন্তর যায়রে জ্বলে।

ভালবাসা ভাল নারে সর্ব লোকে কয়,
সর্ব সময় প্রেমানলে অন্তর পুড়ে খায়।
মনে তোরে চায়রে বন্ধু প্রাণে তোরে চায়,
একবার এসে দিও দেখা মনে যদি লয়।

মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম

Advertisements
Status

ভালো থেকো

ভালো থেকো
©…….সহিদুল

কোথায় আছো কেমন আছো, হে অগ্নিবীণা,
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

রিমঝিমিয়ে বৃষ্টি যখন আসে,
কষ্টেরা সব মনের মধ্যে ভাসে।
তুইযে আমার হৃদ আকাশের নিলীন মোহনা,
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

আমি জানি গো জানি, তুমি স্বর্গসুখের রাণী,
তোর হাসিতে মুক্তা ঝরে, আমার চোখে পানি।
আমার চোখের কষ্টের জল বৃষ্টি নেবে কিনা,
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

তুইযে আমার হৃদ গগনে, রাতের তারা,
তুইযে আমার মুক্ত পাখি বাঁধনছাড়া।
আজো তোকে স্বপ্নে দেখি, তুই দেখিস কি না?
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

নিহারনে এইতো আমার যাচ্ছে বেলা,
আপন মনে চলছে আমার একলা খেলা,
মন বলেছে তোমায় নাকি আর পাবোনা!
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

যেদিন আমি খুঁজে পাব আপন ঠিকানা,
সেদিন তুমি ডাকলেও আমায় পাবে না,
ফিরি যদি নাহি ঘরে, কেঁদনা আর স্মৃতি ধরে।
স্বর্গপানে পাঠিয়ে দিও স্মৃতির পত্রখানা,
সুখেই আছো, ভালো থেকো, আমি নিদ্রাহীনা।

সহিদুল
সিঙ্গাপুর

Status

ওহে কান্ডারী

ওহে কান্ডারী
©…….সহিদুল

সরল পথটা ভাল লাগেনা
কাউয়া চলে বাঁয়ে,
কোকিল গৃহে ডিম দেয়া বাদে
চড়ছে কাউয়া নায়ে।

কাউয়ার দল বজ্জাত ঢের
ময়লাতে পেট ভরে,
মাথার উপর বসে কাউয়া
প্রাকৃতিক কাজ সারে।

কাউয়ারা খুব কর্কশ প্রাণী
ওদের কটু সুরে,
মাথা যতই ঠান্ডা থাকুক
হ্ঠাৎ যাবে ধরে।

কাউয়ার ভারে নাও ডুবে না
জানে যদিও সবায়ে,
তবু মানুষ কাউয়ার ভয়ে
উঠতে চায়না নায়ে।

ওহে কান্ডারী,নৌকা তোমার
সাবধানে চালাও,
নিয়েছি প্রত্যয় লক্ষে যাবার
যাত্রী উঠিয়ে নাও।

সহিদুল
সিঙ্গাপুর

Status

লাল শাড়ীতে

লাল শাড়ীতে
©…….সহিদুল
 
লাল পোষাকে দেখলে কাউরে,
বুক করে ধড়পড়,
এই পোশাকেই প্রিয়া আমায়
কইরা গেছে পর।
 
লাল পোষাকেই শিমুল সাজে,
সাজে কৃষ্ণচূড়া,
সেই ফুলেতেই মাততে দেখি
অশ্লীল ভোমরা।
 
ভ্রমর যখন ফুলে বইসা
মধু লুইটা নেয়,
কেমন করে বুঝাবো হৃদে
কেমন পীড়া দেয়।
 
লাল গোলাপ, হইতাম যদি
মিষ্টি মধুর খ্যাতি,
ভ্রমরের সাথে করে যেতাম,
লাজুক মাতামাতি।
 
বুঝতে তখন লাল শাড়ীতে
কেন আমার ভয়!
এই পোষাকেই প্রিয়া আমার
অনন্ত পর হয়।
 
সহিদুল
সিঙ্গাপুর
Status

আঁখিজলে গাঁথা মালা

আঁখিজলে গাঁথা মালা.jpg

আঁখিজলে গাঁথা মালা

“যতখানি আমার করার, করেছি। বাকিটা ঈশ্বর।”

– বললেন ডাক্তারবাবু।।

– লেইজেলঃ একি বলছেন, ডাক্তারবাবু! তবে কি আমার রোডেন গো …

– ডাক্তারঃ লেইজেল, ধৈর্য্য ধরুন, আমি প্রাণপণ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে এটা অবশ্যই মনে রাখবেন, জন্ম, মৃত্যু, বিয়ে এসবই বিধাতাকে দিয়ে।

– লেইজেলঃ ডাক্তারবাবু, আমি এতকিছু বুঝিনা। আমি আমার রোডেন গো কে সুস্থ দেখতে চাই। (কাঁদতে কাঁদতে) আমি আমার রোডেন গো কে হারানোর কোন কথাই ভাবতে পারিনা। বিখ্যাত ঔপন্যাসিক পাবলো কোয়েলহো বলেছেন, ‘যখন তুমি কোনো কিছু মন থেকে চাইবে, সেটা অর্জনের জন্য সারা দুনিয়া তোমার সহযোগিতায় এগিয়ে আসবে।’ পাবলো কোয়েলহোর বানী বুঝি আজ মিথ্যে প্রমাণ হবে?

– ডাক্তারঃ লেইজেল, আমি জেনেছি আপনি ওকে খুব ভালবাসেন। আমি জেনেছি রোডেন গো কে নিয়ে আপনি অনেক স্বপ্ন দেখেছেন। ওকে বিয়ে করে সুখের স্বর্গ রচনা করতে চেয়েছেন। বিয়ের দিনটাই একজন মানুষের জীবনের সবচেয়ে  সুখের দিন। দুজন মানুষ একে অপরকে ভালবেসে কাছে আসে। সারা জীবন একসাথে থাকার প্রতিজ্ঞা করে যতদিন না মৃত্যু তাদেরকে আলাদা করে দেয়।

– লেইজেলঃ রোডেন গো (ফিলিপাইনের নাগরিক) এমন একটা দিনই তার জীবনে পেতে চেয়েছিল। আগামী ৮ জুলাই রোডেনের ৩০তম জন্মদিনে আমরা বিয়ে করব বলে ঠিক করেছি, কিন্তু  একি হলো? ভাগ্যের একি নির্মম  পরিহাস! তার আগেই আমাকে শুনতে হলো রোডেনের চতুর্থ স্তরের যকৃতের ক্যান্সার ধরা পড়ার কথা। ও বিধি তুমি আমাকে যেন ওর আগেই মৃত্যু দিও। আমি ওর শেষ বিদায়ের দৃশ্য দেখতে পারবনা।

হ্যাসেট গোঃ (রোডেনের ভাই) পার্থিব এই জগৎ সংসারের অকৃতিম মায়া, মমতা, ভালোবাসা কে বা ছেড়ে যেতে যায়! তবুও আমরা তো মানুষ, চলে তো যেতেই হবে। এটা প্রকৃতির নিয়ম। হ্যাসেট গোর যেন মনে পরে গেল কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘সোনার তরী’ কবিতার সেই দু’টি কথা “কী গভীর দুঃখে মগ্ন সমস্ত আকাশ, সমস্ত পৃথিবী। চলিতেছি যতদূর, শুনিতেছি একমাত্র মর্মান্তিক সুর, ‘যেতে আমি দিব না তোমায়। ধরণীর প্রান্ত হতে নীলাভ্রের সর্বপ্রান্ততীর ধ্বনিতেছে চিরকাল অনাদ্যন্ত রবে, যেতে নাহি দিব হায় তবু যেতে দিতে হয় তবু চলে যায়…..”। আমাদের সকলকেই আজ হয়তো কাল এই ভ্রাতৃত্বের বন্ধন ছিড়ে চির বিদায় নিতেই হবে। হ্যাসেট গো লেইজেলকে বললেন, লেইজেল আমি রোডেনের শেষ ইচ্ছাটুকু পূরণ করতে চাই। এক মুহূর্ত আগে হলেও রোডেনের সাথে তোমার বিয়ে দিতে চাই। লেইজেল রাজী হলো।

পরিবার ও বন্ধু-বান্ধব রোডেনের শেষ ইচ্ছা পূরণ করতে এগিয়ে আসল। ১২ ঘণ্টার প্রস্তুতির পর রোডেনের স্বপ্ন পূরণ হলো।

রোডেনের ভাই হ্যাসেট গো অশ্রুসজল নেত্রে বলতে লাগলেন, ওকে আমরা হাসপাতালের বাইরে নিয়ে যেতে পারিনি, তাই চার্চকেই  আমরা তার কাছে নিয়ে এসেছিলাম।

কবুল বলার ১০ ঘণ্টা পরই রোডেনকে যখন জীবনের শেষ বিদায় জানাতে হলো, তখন আঁখিজলে গাঁথামালা দিয়ে রোডেনের বিদায় বেলায় লেইজেলর বিষাদসঙ্গীত…

ওগো বিধি আমার জীবনে
একি তুমি করিলে?
রূপকথার করুন গল্প তুমি
বাস্তবে ঘটালে।

আমার মনের মানুষ তুমি
নিলে ছিনিয়ে,
এখন আমি বাঁচবো বল
কি নিয়ে?

নিয়েছ কারিয়া তুমি আমার
প্রাণের প্রিয়া,
তুমিই বল আমায় কেমনে
ধরিব হিয়া?

সে যে আমার জীবন-মরণ
বাঁচার অনুরণ,
ওর বিদায়ের আগে আমায়
দিলেনা ক্যান মরণ!

*** ফিলিপাইনের নাগরিক রোডেন গো এবং লেইজেলর প্রেম কাহিনী আবলম্বনে।

মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম
Sahidul_77@yahoo.com

Status

জানতে চান কে দেখল আপনার ফেসবুক প্রোফাইল?

জানতে চান কে দেখল আপনার ফেসবুক প্রোফাইল?

https://www.facebook.com/v2.7/plugins/save.php?app_id=1499138263726489&channel=http%3A%2F%2Fstaticxx.facebook.com%2Fconnect%2Fxd_arbiter%2Fr%2F1FegrZjPbq3.js%3Fversion%3D42%23cb%3Dfcf7bd7f805eec%26domain%3Dwww.prothom-alo.com%26origin%3Dhttp%253A%252F%252Fwww.prothom-alo.com%252Ff21eac36d4958e8%26relation%3Dparent.parent&container_width=155&locale=en_US&sdk=joey&size=large&uri=http%3A%2F%2Fwww.prothom-alo.com%2Ftechnology%2Farticle%2F852505 
 

আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কে দেখল, তা কি বের করতে চান? কিংবা কয়জন আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে ঢুঁ মারল বা সর্বশেষ আপলোড করা ছবিটি কারা দেখল, সেটি জানতে চান? ফেসবুক লাইক, শেয়ার, ইমোশন, মন্তব্য দেখার সুযোগ দেয়, কিন্তু কারা প্রোফাইল দেখে গেল, সেটি জানার সুযোগ দেয় না। কিছু কিছু অ্যাপ ব্যবহার করে অনেকে সেটি বের করার চেষ্টা করেন। কিন্তু অ্যাপের সে ফল ঠিকঠাক হয় না। সহজ কয়েকটি ধাপ অতিক্রম করলেই জেনে যাবেন আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কে দেখল সে বিষয়টি।
এ জন্য আপনাকে যা করতে হবে:

১. আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করুন।

.

" onclick="return false;" href="http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2016/05/08/dc0e15683541bb255e409164b50bbe89-Face-1.jpg" title="" id="media_0" class="jw_media_holder pop-media-holder media_image jwMediaContent aligncenter pop-active" data-image="http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/643x0x1/uploads/media/2016/05/08/dc0e15683541bb255e409164b50bbe89-Face-1.jpg" data-caption="আপনার টাইমলাইনে গিয়ে রাইট ক্লিক করে ‘ভিউ পেজ সোর্স’ নির্বাচন করুন।" data-author="" url="http://www.prothom-alo.com/technology#detail-image-1">

আপনার টাইমলাইনে গিয়ে রাইট ক্লিক করে ‘ভিউ পেজ সোর্স’ নির্বাচন করুন।আপনার টাইমলাইনে গিয়ে রাইট ক্লিক করে ‘ভিউ পেজ সোর্স’ নির্বাচন করুন।
২. আপনার টাইমলাইনে গিয়ে রাইট ক্লিক করে ‘ভিউ পেজ সোর্স’ নির্বাচন করুন।.

" onclick="return false;" href="http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2016/05/08/fd99269ab791768cafa9c3039b759c99-Face.jpg" title="" id="media_1" class="jw_media_holder pop-media-holder media_image jwMediaContent aligncenter pop-active" data-image="http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/643x0x1/uploads/media/2016/05/08/fd99269ab791768cafa9c3039b759c99-Face.jpg" data-caption="আপনি পুরো কোডভর্তি একটি পেজ পাবেন। বিভ্রান্ত হবেন না। এখান থেকেই কি-বোর্ডে কন্ট্রোল প্লাস এফ বাটন চাপুন। একটি সার্চ অপশন আসবে।" data-author="" url="http://www.prothom-alo.com/technology#detail-image-2">আপনি পুরো কোডভর্তি একটি পেজ পাবেন। বিভ্রান্ত হবেন না। এখান থেকেই কি-বোর্ডে কন্ট্রোল প্লাস এফ বাটন চাপুন। একটি সার্চ অপশন আসবে।আপনি পুরো কোডভর্তি একটি পেজ পাবেন। বিভ্রান্ত হবেন না। এখান থেকেই কি-বোর্ডে কন্ট্রোল প্লাস এফ বাটন চাপুন। একটি সার্চ অপশন আসবে।
  ৩. আপনি পুরো কোডভর্তি একটি পেজ পাবেন। বিভ্রান্ত হবেন না। এখান থেকেই কি-বোর্ডে কন্ট্রোল প্লাস এফ বাটন চাপুন। একটি সার্চ অপশন আসবে।
  ৪. সার্চ অপশন বক্সে ‘InitialChatFriendsList’ টাইপ করুন।
  ৫. এর পাশে নম্বরের একটি তালিকা পাবেন। আপনার টাইমলাইনে যাঁরা এসেছে তাঁদের ‘আইডি’র তালিকা পাবেন।
  ৬. ওই ব্যক্তি আপনার প্রোফাইল এসেছে কি না, তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনি ‘facebook.com’ সাইটে যান এবং ফেসবুক ডটকমের পাশে স্ল্যাশ চিহ্ন দিয়ে আইডি পেস্ট করে দিন। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, যদি আইডি নম্বর হয় 100001825159730, তবে আপনি লিখবেন facebook.com/100001825159730
  ৭. মনে রাখতে হবে, প্রথম যে আইডিটি রয়েছে, সেটি আপনার প্রোফাইলে ঘন ঘন আসে আর যে আইডি সবার শেষে, সেটি কখনো ভুল করে হয়তো আপনার আইডিতে এসেছে।

তথ্যসূত্র: জি নিউজ

তথ্যসূত্র:http://www.prothom-alo.com/technology/article/852505

শিকার. .. ! ( একটি ভালবাসার গল্প।)

Blogger MM Obaydur Rahman

5703365974_9668a0dbec

মেয়েদের ব্যাপারে আমার তেমন আগ্রহ ছিলনা কোন কালেই। তাই তনু যখন বন্ধুত্বের প্রস্তাব দিল আমি তাতে উৎসাহ দেখালাম না। কেননা আমার চারপাশ দেখে যে অভিজ্ঞতা হয়েছে তাতে বুঝতে পেরেছি কোন তরুনীর বন্ধু হওয়া মোটেও গৌরবের ব্যাপার নয়। মেয়েরা তাদের বন্ধুদের নাকে দড়ি দিয়ে ঘুরাতেই পছন্দ করে। তারপর ব্যবহার শেষে বিগলিত হাসি দিয়ে বলে, তুইতো আমার কেবলী ভাল বন্ধু মাত্র! অথচ দিনের পর দিন গরুর মত খাটানো হয়েছিল বন্ধু নামক বেচারাকে!

তনু কনুদিয়ে হালকা গুতা মেরে বললো, কিরে কি হলো তোর! কি ভাবছিস এত?

View original post 1,673 more words

ভালোবাসা আর প্রতারনার গল্প ….

Blogger MM Obaydur Rahman

581997_320516618035206_634205197_n
কখনো ভাবতে পারিনি আবার আমাদের দেখা হয়ে যাবে। শেষবার যখন তার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে ছিলাম তখন কথা দিয়েছিলাম, আর কখনোই তার সামনে গিয়ে দাড়াবো না আমি।
তারপর কেটে গেছে দশবছর । সময়ও বদলে গেছে অনেক। আমিও বদলে গিয়েছি।
আজ হঠাৎ করেই আবার দেখা হয়ে গেল দুজনার। অফিস ছুটির পর ফুটপাত ধরে হাটতে ছিলাম। হঠাৎ করেই এক নারী আমার সামনে এসে দাড়িয়ে বলে, তুমি! কোথায় যাচ্ছ?
আমি তার দিকে তাকিয়ে খুব অবাক হই। সোফিয়ার শ্যামলা মুখে মিষ্টি হাসির রেখা। বয়স ওর যৌবনে ছাপ ফেলতে পারেনি। তেমনি রয়ে গেছে যেমনটা দেখেছিলাম দশ বছর আগে। চোখে দুষ্টামীর সেই হাসি এখনো আছে। দ্রুত চোখ ফিরিয়ে নিই। আমার বুকের ভেতর যে লুকায়িত অশ্রুর সমুদ্র আছে, সেখানে প্রলয় উঠল যেন। মনে হল চারপাশের ব্যস্ত নগরের সকল কোলাহল থেমে গিয়েছে। নিশ্চুব দাড়িয়ে রইলাম। সোফিয়া খানিকটা ঝুকে এসে বললো, কি হল আমাকে তুমি চিনতে পারো নাই?
ফ্যাকাসে হেসে বললাম, চিনবো না কেন ? তুমি ভাল আছ?
ও…

View original post 1,742 more words

অভিমানী মেঘ (ধারাবাহিক উপন্যাস।)

Blogger MM Obaydur Rahman

9957_125607840965065_1421879621_n

মিতুর আজ ক্লাস নেই। সে বসে আছে তার পড়ার ঘরে। মিতুর টেবিলে একটি গল্পের বই আধা খোলা অবস্থায় পড়ে আছে। বইটা পড়তে চেষ্টা করে ছিল, কিন্তু মনোযোগ দিতে না পারায় বইটা সরিয়ে রাখছে মিতু। তার মন এখন ভয়াবহ খারাপ। সে বুঝতে পারছে না এই অবস্থায় তার কি করা উচিৎ। কেন যে মইন এমন কাজ করে! তার কাঁদতে ইচ্ছে করছে। কিন্তু মিতু কাঁদলো না। সে ডিভিডি প্লেয়ারে রবীন্দ্র সংগীত অন করলো। লো ভলিউমে গান শুনলে মিতুর মন ভালো হয়ে যায়। তবে আজ বোধ হয় রবীন্দ্র সংগীত ফেল করবে। গান ভাল লাগছে না। মনে হচ্ছে কেউ কানের কাছে প্যানপ্যান করছে!

–              এই মিতু, কিরে তুই ভাত খাচ্ছিসনা কেন? তিনটা বেজে গেল।

নিচের ডাইনিং রুম থেকে থেকে উচ্চস্বরে বলে উঠেন মিতুর মা সিমা বেগম। ভাত খেতে দেরি দেখলে তিনি সহ্য করতে পারেন না। ভাত বেড়ে রাখলে ভাত নাকি অভিসাপ দিতে থাকেন! তাই সবাইর উচিৎ ভাত বাড়লে সাথে সাথে খেয়ে ফেলা!

View original post 1,338 more words

স্বপ্ন

Love Story

এখন ও স্বপ্ন বল
তে শুধুই ছিলে তুমি,
তোমায় ভেবে দিন কাটাতাম, রাতে ও পাগলামি।
তোমায় একটু
দেখব বলে, ফাঁকি দিতাম কাজে,
বসে বসে প্রহর গুনতাম, ঐ যে সাকুর মাঝে।
ঐ পথ ধরে রোজ বিকেলে, যেতে মাস্টার বাড়ি,
ফেরার পথে ও দেখতে আমায়, এই সাকুর পারি।
ছটফটা এই পরাণ পাখি, পেলে তোমার দেখা,
ভুলে গিয়ে কষ্ট সবই, মেলত তখন পাখা।
মাঘের রাত ও বাধ পরেনি, দেখার খাতা থেকে,
উলঙ্গ হয়ে দাড়িয়ে আমি,
চোখে স্বপ্ন মেখে।
কনকনিয়ে কাঁপতাম আমি, তবুও থাকতাম দাড়িয়ে,
উষ্ণ হত দেহ আমার, তোমার দেখা পেয়ে।
ঘরের পাশে বকুল তলায়, কত যে রাত গেল,
হিম হয়েও মনের মাঝে. তোমার ছবি এল।বেকুল হয়ে জ্বলত তখন মনের মাঝের ঘর,
যাকে আমি ভালবাসি সে-ই ভাবে পর।
হঠাৎ যখন উকি দিতে, জানালার ফাঁক দিয়ে,
নতুন করে স্বপ্ন জাগত, আবার তোমায় নিয়ে।
তাই তো দিব্যি কেটে যেত, আমার প্রতি ক্ষণ,
এক দিন তো পাব আমি, এই পাষানীর মন।
বুঝতে সবই, তোমায় কত ভালবাসি…

View original post 9 more words